তৈমুর খান এর দুটি কবিতা

TAIMUR-KHAN
আমাদের ঘর 
——————–
আমাদের সামান্য উনুনে 
চাল সেদ্ধ করে দেয়   
ভাতের ফুটন্ত ঘ্রাণে   
আমরা জেগে উঠি  
বাবা একটা তালপাতার বাঁশি বাজায়  
আমি সুর ভরে নিতে থাকি   
অবেলার ক্লান্ত চিল ডেকে যায়   
আমাদের আবছা আকাশে   
উঠোনের ছায়ায়   
বিশ্বাস জেগে ওঠে   
সারাদিন পর   
মাথা নত হয়ে আসে   
আগুনে ধোঁয়ায় হেসে ওঠে আমাদের ঘর
২ 
হেমবর্ণ ঈশ্বর 
——————–
এখন অনুমান করে নিতে পারছি 
সব রমণীরাই এক একটি সাদা ঘোড়া 
প্রেমিকেরা তাদের পিঠে চড়ে চলে যাচ্ছে 
দূর নক্ষত্রের দেশে 
আমরা বিহ্বল হয়ে তাকিয়ে থাকছি 
মাঠময় আমাদের কুঁড়ে ঘর 
ঘরে ঘরে কোলাহল জেগে আছে 
অভিব্যক্তির চড়া রোদে শুকিয়ে নিচ্ছি ব্যঞ্জনা 
আর কৌশলগুলি নিরর্থক বহ্নিশিখা 
আগুন জ্বালাবার তালে আছে 
এক একবেলা মেঘের পাহাড়ে 
কল্পনার ছেলেমেয়েরা খেলাধূলা করে 
প্রেমিক প্রেমিকারা তাদের দিকে রুমাল ছুঁড়ে দেয় 
সেইসব টুকরো রুমালে নৈসর্গিক ভাষা 
চিকচিক করে ওঠে 
আমরা সদর্থক জীবন ভিক্ষা পাই 
আমরা গোধূলির পাঠশালায় হেমবর্ণ ঈশ্বরকে দেখি 
যে আমাদের প্রত্যয় জাগায় প্রত্যহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *