পাল তুলে বেয়ে গেছি সাতটা জোয়ার — অনিন্দ্য পাল

ANINDYA PAUL
সে এক স্বচ্ছ অন্ধকার নেমে এসেছিল সেই দিন 
নৌকার পাঁজরে ছিটকে লেগেছিল অভিশাপ 
অনাব্য হয়েছিল চেনা সব উপকূল বন্দর 
তুমি ছিঁড়ে নিয়ে চলে গেলে পালের কাপড় 
নৌকা থেকে নৌকায় বাহিত হওয়া 
তোমার অভ্যাস 
আমার ঝুলিতে শুধু একটাই দাঁড় সম্বল 
অন্য কোন যাত্রীর ধুলো মাড়ায়নি কখনও 
আমার ঈশ্বর 
অথচ তুমি অনায়াসে ভুলে গেলে 
জন্ম ঠিকানা…
মৃত্যুর রুমালে সেদিন ছিলনা একটাও 
সাদা সুতো 
শুধু গাঢ় ধূসর প্রলেপ ছিল সীমানা বরাবর 
একেবারে রাত নামার আগে জ্বেলে ছিলাম 
সেই টুকরো কাপড় 
যতটুকু বেঁচে আছি তারপর জ্বলাপোড়া সয়ে 
সে এখন অন্য নদী অন্য বন্দর …
তোমার পা থামনি কোথাও, 
ভেবেছিলে নৌকা পেরিয়ে এলে ঠিক পেয়ে যাবে 
বৈদূর্য জাহাজ 
তারপর ঠাঁই নেবে শিরোমণি দেবতার মুষ্ঠিতে …
এই সব ভাঙাচোরা ছই, পৈঠা অথবা বৈঠা 
ভেবেছিলে এরা বুক পেতে লিখে নেবে 
তোমার কৃতঘ্ন উপাখ্যান, 
তারপর ভুলে যাবে সমস্ত ক্ষতের অতীত
ভুল ভেবেছিলে 
সেই সব ভাঙাচোরা পুরোনো ঈশ্বর 
আমায় বয়ে নিয়ে চলেছে অন্য পোতাশ্রয়ে 
আরও সাতটি জোয়ার পেরিয়ে এসেছি এখন 
তোমাকে ফেলে এসেছি তোমার স্রোত-আশ্রয়ে ..

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *