প্রানের বিস্ময় // সফেদ বিহঙ্গ

প্রানের বিস্ময়  //  সফেদ বিহঙ্গ
এ মধুর রাত,এ মধুর চাঁদ
কত স্বপ্নের কোলাহল
কত শত রাত জেগে একা রই
কত স্বপ্নের মতবিরোধ।
কত শত কথা ভাবি এ বিরলে
কত দীনতা চোখে ধরা পরে
মনের চাঁদরে বাস।
এ হৃদয় মাঝে আলো খেলা করে
জাগে বিভেদের বিস্ময়
কত ব্যর্থতা নিমেষে মিলায়
গ্লানিদের আবছায়ায়।
কত শত মিছে, ভাবনা বিরহে
ভাবি একাতরে
মিছে রব ওঠে,চারিপাশ ভরে
এ বিরহ নহে, নহে ভালবাসা
এ জীবনের ধারা, নিয়তির রাহা।
আমি একাকার, হয়ে বারংবার
ভাবি ভাবনা নীরবে।
এ ধরণী পরে স্মৃতি পরে রবে
মুছে যাবে জরা,গ্লানিদের ছায়া।
থেকে যাব আমি ,থেকে যাবে লিখা
কত শত বানী ,কত শত গাঁথা
গহীনও মনের কত শাখা পাতা।
যে মন সদাই বিচলিত রয়
ভালবাসি ক্ষণ, যেন ভালবাসা নয়
শুধু আসা যাওয়া নেই কোন চাওয়া
কেবলই তাকিয়ে দেখা।
জাগে বিস্ময়! প্রানে ভয়
একি আকুলতা
কি নিমগ্ন এ পাওয়া
কত শুভ্রতা কত শান্তি
এ যেন পরম প্রাপ্তি।
নিমেষে হয় শেষ, জাগে অনিমেষ
এক ক্রোধ এক ঝঞ্ঝা।
এ কিছু নয় এযে মিছে ভ্রম
এ যে সকলই সৃষ্ট মনের কল্পনা
ফের কাঁপে প্রান, দোলে হৃদয়
ঝরে অশ্রুর বারিধারা।
একি অবাক!একি কাণ্ড!
এ যে অসম্ভব!
চিত্ত কাঁদে ব্যকুলতা ভরি
অসহায় যেন হৃদয়,
ক্রন্দন ধ্বনি রণিত হয়
চারিধার যেন কাঁপায়।
এ যে চিৎকার
শত মানুষের শত হাহাকার
কিছু না পাওয়ার দুঃখ,
নাকি এ সুখ!
পরম প্রাপ্তি
হটাৎ দেখা সে চেনা মুখ।
এ কি আনন্দ;হটাৎ প্রাপ্তির
নাকি এ উছ্বাস, ক্ষণিকের আশ
পরম শান্তি প্রাপ্তি।
একি বিশালতা তাতে ছড়িয়ে থাকা
নিভৃত এক গোষ্ঠী,
একি প্রতিবাদ নাকি আবাদ
নাকি করজোড় ক্ষমা প্রাপ্তি।
শত প্রতিরোধ ভেঙ্গেচুরে বধ
জাগে প্রত্যয় মনে।
শত স্রোতধারা তারই ব্যকুলতা
নীরবে ভাসায়,
তারই তোড়ে সদা জেগে রই
সদা জেগে রয় এ হৃদয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *