হেমন্তে — বিশ্বনাথ পাল

হেমন্তে  --   বিশ্বনাথ পাল

অস্তিনে গুটানো বারুদ নেই আর

আপাতত শান্ত তরল সোনার মত নদী
চিকচিক। সর্পিল গতি তার সদা ব্যস্ত
শীতের সম্ভারে সাজাতে জগৎ। আনন্দীর
দোকানে ধূমায়িত চায়ের টানে আমরা জনাকতক
দাঁড়িয়ে রয়েছি ঠায়, শুকনো পাতার খসখস শব্দে
ট্যাপখোলা কল থেকে চূড়ান্ত অপচয় দেখেও জীবনে – – – –
হাত গুটিয়ে থাকি। কেন না আমাদের কুলঙ্গিতে
লুকানো নেই কোন বিষের থলি,
তাপদাহে কালদহে ঘামের খামে
হেমন্ত পাঠায় চিঠি কি জানি কী নামে। 
শীতের আমেজ নিতে বক্ষ দুরুদুরু
শীতবস্ত্র কেনা হল এই শুরু :
চিল্কা হ্রদের মাথায় উড়ে বিহঙ্গ আপনার ঠাটে
আলু – রাঙাআলু সরিষার জমি মুসুর খেসারী কপি
আর পালং শাকের জমি যে তৈরী তবু মহাবাহু পবন কুমার মাঝে মাঝে উঠকো ভয়ে শাসায় 
স্বপ্ন চাষার। স্থলিত পদ্মের মত বিবসনা সাম্যের স্রোতে হেমন্ত ধরুক হাত দুটিহাত চেপে। 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *