একটি গদ্য কবিতা —- মৃত্যু যন্ত্রণা – সবিতা কুইরী

sahityalok.com

আমি ঝড়
জন্ম  থেকেই  শুরু হয় আমার অস্থিরতা ।
মৃত্যুর অস্থিরতা ।
জন্ম লগ্ন থেকেই  পাক খেতে খেতে ক্লান্ত  হয়ে উঠি।
মাতৃ জঠর থেকে বেরিয়েই
মৃত্যুর দিন গুনি আমি ।
যন্ত্রণায় ছটফট করতে করতে
আছড়ে পড়ি ভূপৃষ্ঠে ।
তার পর তো সব জান তোমরা।
উঃ কি শ্বাস কষ্ট  কি যে কষ্ট
দম বেরিয়ে যেতে চাই।
মাটি কামড়ে গাছ উপড়ে ধানের ক্ষেতে শুয়ে থাকার ছটফটানি
তো দেখেছ তোমরা।
শুনেছি মাটির ঘরে শান্তি থাকে।
তাই তো একটু শান্তি র আশাই
সেখানে আশ্রয় খুঁজি।
কিন্তু হাই থামে না অস্থিরতা ।
ভেঙে পড়ে সবকিছু ।
যন্ত্রণা যন্ত্রণা যন্ত্রণায় ঝটপট করতে করতে ছুটি কেবল ছুটতে থাকি।
আমিও চাই না, এমন তাণ্ডব
আমিও তো বাঁচতে চাই ।একটু স্থির হয়ে  বাঁচতে চাই।
প্রকৃতি কে ভালোবাস তোমরা।
আমিও তো প্রকৃতির এক অংশ বল?
কিন্তু  আমার  যন্ত্রণায় আমাকে চঞ্চল করে অস্থির করে।
জারজ সন্তানের মত মাও আমাকে ছুঁড়ে ফেলে।
তাই তো রাগে ক্ষোভে দুঃখে
মৃত্যুকে করি বরণ।
বাধাপ্রাপ্ত হলেই তাকেও নিয়ে যায় মৃত্যু পুরী।
কেউ  আমাকে পছন্দ করে না।
ক্ষণিকের অতিথি তবুও  না।
মৃত্যু শুধু হাতছানি দেয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *