এক বছর ধরে কারাগারের বাইরে মালিকের জন্য কুকুরের অপেক্ষা – সিদ্ধার্থ সিংহ

‘হাচিকো’ ছবির দৌলতে জাপানের বিখ্যাত কুকুর হাচিকো’র ইতিহাস সবারই কম-বেশি জানা। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মালিকের জন্য রেলস্টেশনেই অপেক্ষা করেছে সে।
এ বার সেই একই রকম কাণ্ড ঘটিয়ে ‘আর্জেন্টাইন হাচিকো’ হিসেবে খ্যাতি পেয়েছে আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আয়ার্সের কুকুর— শেইলা। গত এক বছর ধরে মালিকের জন্য স্থানীয় একটি কারাগারের বাইরে অপেক্ষা করছে সে।
জানা যায়, গত বছর শেইলা’র মালিককে গ্রেফতার করে বুয়েন্স আয়ার্স প্রভিন্সের ছোট্ট একটি শহর ২৫ ডি মায়োর পুলিশ। বিচারে তাঁর জেল হয়। সেই থেকে মালিকের অপেক্ষায় ওই কারাগারের বাইরেই অপেক্ষা করছে সে।
পুলিশের ধারণা, মালিককে গ্রেফতার হতে দেখেই পুলিশের পিছু পিছু কোর্ট এবং কোর্ট থেকে কারাগারে চলে আসে প্রভুভক্তটি। সেই থেকে তার অপেক্ষা।
কয়েক দিন যেতে না যেতেই শেইলা’র বিষয়টি নজরে পড়ে কারারক্ষীদের। তাঁরাই তাকে খাবার দিতে শুরু করেন।
শুরুতে একটু সাবধানী আচরণ করলেও ধীরে ধীরে কারারক্ষীদের বিশ্বাস করতে শুরু করে সে। এখন সে কারাগারের ভেতরে গিয়েই ঘুমোয়, মাঝে মাঝে পুলিশদের সঙ্গে ঘুরেও বেড়ায়। তবে যেখানেই যাক না কেন, দিনের শেষে মালিকের অপেক্ষায় আবার সে কারাগারেই ফিরে আসে।
স্থানীয় পুলিশ কমিশনার হুয়ান হোসে মার্টিনি গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা শেইলার মালিককে গ্রেফতার করে নিয়ে এসেছি। সেই থেকে সে এখানে অপেক্ষা করছে।
আমার মনে হয়, সে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করেই এখানে এসেছে। প্রথম দিকে ৪-৫ বছর বয়সী এই কুকুরটি কারাগারের বাইরে অপেক্ষা করছিল। ধীরে ধীরে সে সবার প্রিয় হয়ে উঠেছে। এখন সে আমাদের পরিবারেরই একজন। সবার সঙ্গে সে খুব দ্রুত মানিয়ে নিয়েছে।’
শেইলার এমন আচরণে মুগ্ধ হয়ে তাকে তার মালিকের সঙ্গে প্রতিদিন কিছুক্ষণের জন্য সময় কাটানোর সুযোগ দেন কারারক্ষীরা।
একজন পুলিশ জানান, ‌‌‘সে এখন তার প্রভুকে দেখতে যখন তখন ভেতরে যায় এবং কারাগারের ভেতরেই ঘুমোয়।’
কয়েক মাস আগে তাকে একটি বুলডগ আক্রমণ করেছিল। তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসকের কাছে যান আমাদেরই এক কারারক্ষী। চিকিৎসার খরচও বহন করেছিলেন তিনি।
কমিশনার মার্টিনি আরও বলেছেন, ‘কুকুরটির মালিক এই কারাগার থেকে মুক্তি পেলে শেইলা হয়তো তাঁর সঙ্গে তাঁদের বাড়িতেই ফিরে যাবে এবং অবশ্যই আমরা সবাই তাকে খুব মিস করব।’
শেইলার মালিকের সাজার মেয়াদ সাড়ে তিন বছরের। ইতিমধ্যেই প্রায় এক বছর পার হয়ে গেছে। বাকি রয়েছে আর আড়াই বছর।
ওই পুরো সময়টাই শুধুমাত্র ভালবাসার খাতিরেই এই সারমেয়টির দেখভালের দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছেন ওই কারাগারের কর্মীরা।

1 thought on “এক বছর ধরে কারাগারের বাইরে মালিকের জন্য কুকুরের অপেক্ষা – সিদ্ধার্থ সিংহ”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *